July 13, 2024, 2:16 am

টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত আগৈলঝাড়ার জনজীবন

টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত আগৈলঝাড়ার জনজীবন

ইত্তিকার তালুকদার, আগৈলঝাড়া ॥ টানা বৃষ্টিতে বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। অব্যাহত বৃষ্টির কারণে নদ-নদী ও খালে পানি বেড়েছে। বৃষ্টির কারণে নিম্ন আয়ের মানুষ সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন। বৃষ্টি আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর। আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, লঘুচাপের কারণে গত বুধবার থেকে শুক্রবার সারা দিন কখনো মাঝারি আবার কখনো গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। বঙ্গোপসাগরে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় অধিকাংশ স্থানে আরও ভারী অথবা মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। একই সঙ্গে দমকা, ঝোড়ো হাওয়া ও বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। অব্যাহত বৃষ্টির কারণে উপজেলার জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। অতি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না কোনো মানুষ। যারা ঘরের বাইরে বের হয়েছে তারা বিপাকে পড়েছে। যানবাহনের স্বল্পতার কারণে অনেক মানুষকে রাস্তায় হাঁটতে দেখা গেছে। উপজেলার বেশির ভাগ নিচু এলাকায় বৃষ্টির পানি জমে সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানান স্থানীয় কৃষকেরা। আগৈলঝাড়া-পয়সারহাট সড়কে চলাচলকারী ইজিবাইকের চালক বাদশা সরদারসহ একাধিক ব্যক্তি বলেন, ‘সকাল থেকে বৃষ্টির কারণে কোনো যাত্রীর দেখা নেই। তারপর আবার দিন শেষে ইজিবাইকের ভাড়া জমা দিতে হবে। কিন্তু বৃষ্টির কারণে বেশির ভাগ লোকই রাস্তায় বের না হওয়ায় আমরা কোনো যাত্রী পাইনি।’ গৈলা বাজারের সবজিবিক্রেতা একলেচ সরদার বলেন, ‘সপ্তাহের প্রতিদিন এমন সময় ক্রেতাদের ভিড়ে দম ফেলার সময় থাকে না। কিন্তু বৃষ্টির কারণে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কোনো ক্রেতার দেখা নেই। এ ছাড়া বৃষ্টির কারণে অনেকের জমির সবজি পচে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।’ উপজেলায় গত টানা তিন দিনের বৃষ্টির কারণে অধিকাংশ সবজিখেত জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। কৃষকেরা খেত থেকে পানি বের করার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। উপজেলার মোল্লাপাড়া গ্রামের সবজি চাষি ধীরেন মন্ডল, মতি হালদার, শান্তি রঞ্জন হালদার জানান, খেতে পানি জমার কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হবে শসা, মরিচ, পটোল, বেগুনসহ বিভিন্ন সবজির। তারা আরও জানান, অল্প বৃষ্টিতে সবজিখেতের কোনো ক্ষতি না হলেও অতিরিক্ত বৃষ্টি হলে খেত নষ্ট হয়ে যায়। তিন দিনের বৃষ্টিতে অধিকাংশ খেতে বৃষ্টির পানি জমে আছে। এতে সবজির গাছে পচন ধরে নষ্ট হয়ে যাবে। প্রতিটি খেতেরই সবজি পচে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। অবিরাম বর্ষণে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মাছের ঘের ও পানের বরজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ ছাড়া শাক-সবজি পানিতে তলিয়ে ক্ষতির মুখে পড়েছেন কৃষকেরা। কৃষকেরা জানান, অতিবর্ষণের কারণে পানের রং নষ্ট হয়ে পাতা ঝড়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে এবং লতা পচে যাচ্ছে। উপজেলার গৈলা গ্রামের কৃষক নির্মল বলেন, ‘টানা তিন দিনের বৃষ্টিতে পানের বরজে পানি জমে গেছে। এ রকম একটানা আরও কয়েক দিন বৃষ্টি হলে বরজ ধসে পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। পানের বরজের গোড়ায় পানি জমে গেলে পান বাঁচানো সম্ভব নয়। এদিকে অনেক কৃষকের মাছের ঘের তলিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। পুকুর ও ঘেরের চারপাশে জাল দিয়ে মাছ আটকে রাখার চেষ্টা করছেন তাঁরা। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা পীযূষ রায় বলেন, বৃষ্টির কারণে সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আমরা মাঠ পর্যায়ে কৃষকের খোঁজ-খবর নিচ্ছি। অনেক সবজি খেতে পানি ঢুকে পড়েছে। ফলে কৃষকেরা হাজার হাজার টাকার ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তার পরেও সবজি খেত রক্ষায় নানা পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © All rights reserved © 2024 DailyBiplobiBangladesh.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com